১৪ সেপ্টেম্বর পালিত হল বালুরঘাট দিবস

বিনয় আগরওয়াল দক্ষিন দিনাজপুর:১৪ সেপ্টেম্বর পালিত হল বালুরঘাট দিবস। ১৯৪২ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বালুরঘাটের ট্রেজারি বিল্ডিং থেকে বৃটিশ পতাকা নামিয়ে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন স্বাধীনতা সংগ্রামীরা। দুই দিন স্বাধীনতার স্বাদ পান বালুরঘাটবাসী। স্বাধীনতা সংগ্রামীদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রতি বছর পালিত হয় এই দিনটি।

উল্লেখ্য ১৯৪২ সালে ভারত ছাড়ো আন্দোলনের ঢেউ আছড়ে পড়ে বালুরঘাটেও। বালুরঘাটের বাসিন্দা স্বাধীনতা সংগ্রামী সরোজ রঞ্জন চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বালুরঘাট শহরের উপকণ্ঠে ডাঙ্গী গ্রামে হাজার হাজার মানুষ জমায়েত হন আগের দিন রাতে। ১৪ সেপ্টেম্বর তারা বালুরঘাটে এসে শহর অবরুদ্ধ করে দেয়। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় আদালত, পোস্ট অফিস, প্রশাসনিক ভবনে। তৎকালীন প্রশাসনিক ভবন বর্তমানে ট্রেজারি বিল্ডিং থেকে বৃটিশ পতাকা নামিয়ে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। একটি পুকুরের মধ্যে অস্ত্রসস্ত্র ফেলে পালিয়ে যান বৃটিশ কর্তারা। সেই সময় দুই দিন স্বাধীনতার স্বাদ পান বালুরঘাটবাসী। দুই দিন পর বৃটিশ সেনা ফিরে এসে পুনরায় দখল নেয় বালুরঘাটের। চলে ধরপাকড়, অত্যাচার। সেদিনটি স্মরণ করে এদিন পালিত হয় ৭৭ তম বালুরঘাট দিবস। এদিন ডাঙ্গী গ্রাম থেকে বালুরঘাট শহরে মিছিল করে এসে জেলা প্রশাসনিক ভবনের সামনে স্মৃতি স্তম্ভে শহীদদের উদ্দেশ্য মাল্যদান করা হয়। ভারতের জাতীয় পতাকা তুলে স্মৃতি স্তম্ভে মাল্যদান করেন জেলা শাসক দীপপ প্রিয়া, অতিরিক্ত জেলাশাসক মৃন্ময় বিশ্বাস, জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি আধিকারিক শান্তনু চক্রবর্তী সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ।

বালুরঘাট দিবস উদযাপন কমিটির সভাপতি পীযূষ কান্তি দেব জানান, ৪২ এর আন্দোলনের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রতি বছর এই দিনটি পালন করা হয়। ভারত ছাড়ো আন্দোলনে সরোজ রঞ্জন চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বালুরঘাটে ট্রেজারি বিল্ডিং থেকে বৃটিশ পতাকা নামিয়ে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছিল। যা সারা ভারতে পঞ্চম এবং বাংলায় দ্বিতীয় পীঠস্থান। আমরা সরকারের কাছে দাবি করেছে এই দিনটিকে সরকারী ভাবে পালন করা হোক।

এদিন বালুরঘাট দিবস পালন অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা তুলে স্মৃতি স্তম্ভে মাল্যদান করেন জেলা শাসক দীপপ প্রিয়া জানান, ইতিহাসের পাতায় আমরা সকলেই ৪২ এর আন্দোলন পড়েছি কিন্তু আমরা জানিনা যে বালুরঘাটে এই রকম একটি আন্দোলন হয়েছিল। এখানে এসেই জানতে পারি। আমি চেষ্টা করবো সরকারী তরফে প্রতি বছর এখানে বালুরঘাট দিবসের অনুষ্ঠান করার এবং শহীদদের উদ্দেশ্য একটি স্মৃতি স্তম্ভ তৈরি করে দেওয়ার।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *