Tuesday, October 25, 2016 1:53:13 PM
Total Visitors
506189

সম্পাদকীয় যোগাযোগ

 " 9007322922 / 8900568880 "       

খবর ফ্ল্যাশ

 " আপনারাও হতে পারেন আপনাদের এলাকার সাংবাদিক, আপনাদের চোখের সামনে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলি ক্যামেরাবন্দি করুন আর পাঠিয়ে দিন আমাদের- 8777026797 এই নম্বরে "       

সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

 " সরকার সদর্থক ভূমিকা গ্রহণ না করলে, বিলুপ্ত হতে পারে শান্তিপুরের ঐতিহ্যবাহী রাস "      " কেশিয়াড়ী তে গ্রেফতার ৩ ছিনতাইবাজ, উদ্ধার ১১ টি মোবাইল। "      " ফের আটক মেহবুবা মুফতি! কাশ্মীরে নির্বাচনের আগে কোন পদক্ষেপ সরকারের? "       

সাম্প্রতিক

রাফাল চুক্তিতে বিপাকে মোদী সরকার

রাফাল বিমান নিয়ে ফ্রান্সের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদের এক সাক্ষাৎকারেই কার্যত বিপাকে পড়েছে মোদী সরকার।একটি ফরাসি পত্রিকাকে ওলাঁদ জানান যে,"ভারত সরকার আমাদের উপরে রিলায়্যান্সকে চাপিয়ে দিয়েছিল।আমাদের সামনে কোনও বিকল্প ছিল না"।তার এই বক্তব্যকে ঘিরেই তৈরি হয় বিতর্ক। প্রসঙ্গত ওলাঁদ প্রেসিডেন্ট থাকা কালীনই ২০১৫ সালে মোদীর ফ্রান্স সফরে ৩৬টি রাফাল কেনার চুক্তি হবার পরের বছরই ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট দিল্লী এলে সাক্ষরিত হয় সেই চুক্তি।কিন্তু সাক্ষাৎকারে ওলাঁদ জানান ,"ভারত সরকার ওই গোষ্ঠীর নাম প্রস্তাব করে। অম্বানীর সঙ্গে বোঝাপড়া করে দাসো।আমরা কাউকে পছন্দ করিনি"।যদিও ওলাঁদের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ফ্রান্স সরকার জানিয়েছে, কোনও বিশেষ কোম্পানিকে নির্বাচনের করার ক্ষেত্রে কোন প্রকার চাপ সৃষ্টি করেনি ভারত সরকার৷ তবে অরুণ জেটলি, নির্মলা সীতারামন সহ অনিল অম্বানিও দাবি করেন যে, তাঁর সংস্থার সঙ্গে চুক্তি হয়েছে রাফাল-নির্মাণকারী সংস্থা দাসোর। সেখানে মোদী সরকারের কোন ভূমিকা নেই। এই রাফাল চুক্তির পরিমাণ ২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা ভারতীয় মুদ্রায় ১ লক্ষ ৩০ হাজার কোটি টাকা৷এ নিয়ে রাজনৈতিক মহলে মতবিরোধ লাগলে তার প্রতিবাদ করেছেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রক।এবং জানানো হয় যে, প্রাক্তন ফরাসি প্রেসিডেন্টের সাক্ষাৎকার নিয়ে তদন্ত চলবে।তবে এটাও স্পষ্ট করে দেওয়া হয় যে কোন সংস্থাকে অর্ডার দেওয়া হবে,সে ব্যাপারে উভয় সরকারেরই কোনও ভূমিকা ছিল না।কিন্তু তা সত্ত্বেও রাফাল যুদ্ধ বিমানচুক্তিতে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের পদত্যাগের দাবী করেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধি৷